অধিকার বঞ্চিত ভালোবাসার গল্পে যা বললেন অপু বিশ্বাস

বছর দেড়েক ধরে আত্নগোপনে থাকা নায়িকা অপু বিশ্বাস আজ আবির্ভূত হলেন নায়ক শাকিব খানের স্ত্রী হয়ে, শাকিবের সন্তানের মা হয়ে। নিখোঁজ দেড় বছরে ডালপালা গজাতে থাকা সে গল্প আজ বিস্ফোরিত হলো মিডিয়া জগতে। টেলিভিশন চ্যানেল নিউজ টুয়েন্টিফোরে সোমবার বিকেলে হাজির হয়ে টক অব দ্য কান্ট্রিতে পরিণত হয়েছেন চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস। প্রায় এক বছর অন্তরালে থাকার পর জানালেন, শাকিব খানের সঙ্গে প্রেম, বিয়ে ও সন্তানের মা হওয়া প্রসঙ্গ।

তিনি বলেন, ‘সবকিছু এতদিন আগলে রেখেছি। তার বিনিময়ে শুধু সম্মান চেয়েছি। তা পাইনি।’ কথোপকথেনের একপর্যায়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন অপু। জানান, শাকিব ও তার একটি সন্তান আছে। দশমাস সন্তান নিয়ে তিনি সংগ্রাম করেছেন। কিন্তু শাকিবকে কাছে পাননি।

তিনি বলেন, ‘শাকিব আর আমাদের একটা সন্তান আছে। সে বাচ্চাটাকে আমি অনেক স্ট্রাগল করে জন্ম দিছি। শাকিব আমার পাশে ছিল না। সে টাকা দিয়েছে।… এমন সময় চাইছিলাম একবার হ্যালো বলি। আমি কী অন্যায় করেছি। ওর মা আছে বোন আছে।… আমার কি অন্যায়, আমি নায়িকা!’

অপুর প্রশ্ন— শাকিবকে কোনোদিন ছোট করেননি। শাকিব কেন তাকে ছোট করল? জানান, বিয়ে ও সন্তান প্রকাশ্যে আসুক শাকিব চাইতেন না। কিন্তু অনেক ধৈর্য ধরেছেন তিনি, আর পারছেন না, তাই সব খুলে বলছেন।

‘লাভ ম্যারেজ’ নায়িকা জানান, শাকিবের বাড়িতেই ২০০৮ সালের ১৮ এপ্রিল তাদের বিয়ে হয়। কাজী আসে ফরিদপুরের ভাঙা থেকে। বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন প্রযোজক মামুনুজ্জামান খান ও শাকিবের ভাইসহ অনেকে। ওই সময় অপুর নাম পাল্টে রাখা হয় অপু ইসলাম খান।

বিয়ের বিষয়টি এতদিন গোপন রাখার কারণ হিসেবে বলেন, শাকিবের ইচ্ছাতেই এতদিন বিযের বিষয়টি গোপন করে রেখেছিলেন তিনি।

২০১৬ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর শাকিব-অপুর ছেলের জন্ম হয়। নাম রাখা হয় আব্রাহাম খান জয়। ওই সময় শাকিব কলকাতায় থাকলেও হাসপাতালে যাননি। অপু বলেন, “জয়ের জন্ম ভারতে হয়েছে। সিজারের মাধ্যমে ওর জন্ম হয়। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য ওই সময় নিজে বন্ড সই দিয়ে সিজার করিয়েছি। ডাক্তার এ অবস্থা দেখে খুব অবাক হয়ে বলেছিলেন, ‘আমার ৩৫ বছরের ডাক্তারি ক্যারিয়ারে এমন রোগী কখনো পাইনি যে, নিজে বন্ড সই দিয়ে অপারেশন থিয়েটারে ঢোকে।”

তিনি বলছিলেন, ‘আমি অনেক কষ্ট করেছি। শাকিব শুধু টাকা দিয়ে সাহায্য করেছে কিন্তু আমার পাশে থাকেনি। শাকিব আমাকে ঠকিয়েছে কিন্তু আমি তাকে ঠকাইনি। আমার প্রাণের ছবি বসগিরি ছেড়ে গেছি। আমি তাকে সার্পোট দিয়ে গেছি। আমি চেয়েছি শাকিবের ক্যারিয়ার ভালো হোক।’

নিজের সন্তান সম্পর্কে অপু বলেন, ‘আমি চাই আমার সন্তান সুন্দর মানুষ হিসেবে গড়ে উঠুক। আমার ছেলের দ্বারা যেন কোনো মেয়ে প্রতারিত না হয়।’

তবে অপু জানান, শাকিব সন্তানকে দেখতে আসেন। আদর-যত্নও করেন। কিন্তু অপুর সঙ্গে কথা বলেন না। তিনি সন্তানের সামাজিক স্বীকৃতি চান। উঠে আসে এক জুনিয়র আর্টিস্ট (শবনম বুবলি) নিয়ে বিতর্ক। বিষয়টি খেয়াল করতে বললেও শাকিব কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি। অপুর ভাষায়, শাকিব তাকে সম্মান করেনি। তাকে ছোট করা মানে সন্তানকে ছোট করা।

তিনি বলেন, ‘শাকিব যদি এই অনুষ্ঠান দেখে থাকে তবে ওর দায়িত্ব হবে দূর থেকে ওকে (ছেলেকে) আদর করে দেওয়া। বাবা হয়ে আমার ছেলেকে যেন না ঠকায়।’

অপু জানান, বিয়ের বিষয়টি শাকিবের পরিবার মেনে নিয়েছিল। বলেন, ‘ওর পরিবারের সবাই জানত আমাদের বিয়ের কথা। আমি তো ওর পরিবারের সঙ্গেই থাকতাম। ওর বাসাতেই থাকতাম।’

আরো বলেন, ‘আমি বাংলাদেশে ফেরার পর শাকিব দেখা করতে এসেছিল। বাচ্চার বয়স তখন তিন মাস। ওর ফ্যামিলির সবাই দেখে গেছে।’

অপু বলেন, ‘ও (শাকিব) তো কাউকে বাবা বলে ডাকে। বাবা হয়ে যেন আমার ছেলেকে না ঠকায়। তাদের আশপাশে তো অনেক লোক আছে, তারাও তো বাবা। তারাও তো তাদের সন্তানদের আদর করে। আমি কী অন্যায় করেছি, যার জন্য এত শাস্তি পেতে হলো?’

সম্প্রতি নায়িকা শবনম বুবলির সঙ্গে অপুর ঝগড়ার ঘটনাটি বেশ আলোচনা তুলেছিল। এ প্রসঙ্গে অপু জানান, স্ত্রী হিসেবে স্বামী শাকিবের সঙ্গে বুবলির মেলামেশা পছন্দ করেন না। এ কারণেই শাকিব-বুবলি জুটিকে মেনে নিতে পারেন না। তবে নিজের ব্যবহারের জন্য বুবলির কাছে ক্ষমা চান অপু। শোনা যাচ্ছে, বুবলির সঙ্গে ‘রংবাজ’ নামের একটি ছবির করছেন শাকিব। এ প্রসঙ্গে বলেন, ‘শাকিব আমাকে বলেছিল ওর সঙ্গে ছবি করবেন না। কিন্তু নিউজ দেখে আমি অবাক হয়েছি।’

বুবলির জন্য শুভকামনা করে বলেন, ‘বুবলির বুঝতে পারা উচিত, শকিবের স্ট্যাটাসটা কি? শাকিব আর আমার সম্পর্কটা কি?’

বাচ্চাকে নিয়ে আপনি নিরাপদ কি না? এমন প্রশ্নের জবাবে বলেন, ‘আমি বলতে পারছি না আমার কী হবে, আমি আবারও দর্শকদের মধ্যে আসব।’

আরো বললেন, ‘আমি চাইবো আবার কাজে ফিরি। দর্শক চাইলে সেটা সম্ভব হবে।’ জানান, কী কী সিনেমা অসমাপ্ত রেখেছিলাম, সব মনে আছে। আগামী একমাস ফিটনেসের ওপর জোর দেবেন।

২০০৬ সালে ‘কোটি টাকার কাবিন’ সিনেমার মাধ্যমে প্রথমবার জুটি হয়ে পর্দায় আসেন শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস। এরপর তারা ৮০টির বেশি সিনেমায় অভিনয় করেন। যার মধ্যে অনেকগুলো সিনেমা সুপারহিট হয়। এ জুটিকে সর্বশেষ দেখা যায় ২০১৬ সালের ঈদুল ফিতরে মুক্তি পাওয়া ‘সম্রাট’-এ। মুক্তির অপেক্ষায় আছে ‘রাজনীতি’। এছাড়া কয়েকটি সিনেমা অসমাপ্ত রয়েছে।

Comments

comments

Scroll To Top