আমার বাসার দাওয়াত শাকিব ভাই মিস করেন না – সম্রাট

গত বছর ‘কার্তুজ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে শেষবার পর্দায় উপস্থিত হয়েছেন চিত্রনায়ক ও নায়করাজ পুত্র সম্রাট। প্রায় দেড় বছর পর আবারো তিনি পর্দায় ফিরছেন। রাজু চৌধুরী পরিচালিত ‘শুটার’ ছবির মধ্য দিয়ে কোরবানির ঈদে আবারো তিনি পর্দায় আসছেন। আর এই নিয়ে সম্প্রতি ঢালিউড২৪’র মুখোমুখি হয়েছেন তিনি। সাক্ষাৎকার নিয়েছেন জে আই মোহসান। ঢালিউড২৪ এর সৌজন্যে সাক্ষাতকারটি ফিল্মীমাইক পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

file-6

অনেকদিন পর পর্দায় ফিরছেন। কেমন লাগছে?
প্রায় দুই বছর পর আমার ছবি মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এরচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে অনেকদিন পর আমার ছবি ঈদে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। অনেক ভালোও লাগছে আবার অনেক টেনশনও হচ্ছে। তবে প্যানেলের টেকনিক্যাল লোক যারা আছেন তারা সবাই অনেক প্রশংসাও করেছেন। ভালো লাগছে যে অনেকদিন পর একটা বড় ছবি আসছে। যেখানে শাকিব ভাই আছেন, মিশা আঙ্কেল আছেন, আরো অনেক সিনিয়র শিল্পীরা আছেন। তাদের সঙ্গে আমার মত ছোটখাটো একজন শিল্পী কাজ করতে পেরেছি এটাও বিশাল একটা ব্যাপার।

শাকিব খানের সঙ্গে প্রথম কাজ করার অভিজ্ঞতাটা একটু শেয়ার করেন।
শাকিব ভাই আমাকে খুব স্নেহ করেন। আমিও ওনাকে অনেক আগে থেকেই রেসপেক্ট করি। আমার সঙ্গে তার অনেক আগে থেকেই ভাই ভাই সম্পর্ক। আমার বাসার কোনো দাওয়াত শাকিব ভাই কখনো মিস করেন না। শুটিং থাকলে লেট হলেও ফোন দিয়ে বলেন, ‘সম্রাট বিরিয়ানিটা রাখো আমি আসছি’। আমাদের মধ্যে সম্পর্কটা এতো নিবিড়। আমার খুব ইচ্ছে ছিলো শাকিব ভাইয়ের সঙ্গে একই ছবিতে কাজ করা। যেটা ‘শুটার’ পূরণ করে দিলো। শাকিব ভাই যখন জানলেন আমি ওনার সঙ্গে কাজ করবো তখন তিনিও খুব খুশি হয়েছিলেন। একসঙ্গে কাজ করার অভিজ্ঞতাটা আরো মজার। শুটিংয়ের সময় তিনি আমার নিয়মিত খোঁজ-খবর নিতেন। ঠিকমত খেয়েছি কিনা সেটার খবরও নিতেন। শুটিংয়ের সময় সুযোগ পেলেই আমাকে ফোন করতেন। বলতেন, সম্রাট কোথায় তুমি মেকাপরুমে চলে এসো আড্ডা দেই। শুটিংয়ে ফাঁক পেলেই আমরা প্রচুর আড্ডা দিতাম। কিছু সময় এমনও হয়েছে শুটিংয়ের ক্যামেরা রেডি কেউ ডাকতে এলে তখন তিনি বলতেন, এই যাও এক ঘণ্টা পরে আসছি। আমরা এখন খাবো। এরপর কিছুক্ষণ আড্ডা দেবো।

photo-1471426324

চলচ্চিত্রে আপনাকে নিয়মিত পাচ্ছি না কেন?
নিয়মিত সিনেমায় নাই কেন সেটার পেছনেই কাহিনী আছে। আমিতো ভাই অনেক কিছুই করতে পারি না অন্যদের মত এজন্য আমার চলচ্চিত্রে কাজও কম। আমি চলচ্চিত্রের রাজনীতিও করি না। সাদামাটা মানুষ। কাজ যতক্ষণ ততক্ষণ থাকি, কাজ শেষ চলে যাই। মদের আড্ডায়ও বসি না, আবার অন্য কোনো স্বভাবও নেই। আসলে এই ধরণের মানুষের ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ কমই থাকে হা হা হা। এছাড়া ভালো গল্পের ছবি পেলে অবশ্যই নিয়মিত কাজ করবো। যতগুলো ছবির অফার পাই কোনটার গল্প পছন্দ হয় না। কোনটার আবার প্রডাকশন পছন্দ হয় না। মনমত গল্পসহ সবকিছু না পাওয়াতেই আসলে নিয়মিত কাজ করা হচ্ছে না।

নতুন কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ আছেন?
না। এখন পর্যন্ত নতুন আর কোনো ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হইনি।

ছোট পর্দায় আপনাকে নিয়মিত কাজ করতে দেখা যায়। এর কারণ কী?
ছোট পর্দায় কাজ করার পেছনে প্রধান কারণ হচ্ছে এখানে আমি কাজ করতে গিয়ে অনেক ভেরিয়েশন পাচ্ছি। একেকটা প্রজেক্টে একেক রকম ক্যারেকটার প্লে করতে পারছি। যার ফলে আমি নিজেকে অনেক ভাঙতে পারি। তাছাড়া এখানে আমার নিজের মত কাজ করতে আমি পারি। আমি অভিনয়ের পাশাপাশি এখানে পরিচালনার দায়িত্বেও রয়েছি।

somrat

চলচ্চিত্র পরিচালনায় আসার ইচ্ছে আছে?
আপাতত চলচ্চিত্র পরিচালনায় আসার কোন ইচ্ছে নাই।

‘শুটারে’ আপনার চরিত্রটা কী থাকছে?
‘শুটার’ ছবিতে আমার চরিত্রের নাম রোমেন। খুব বোল্ড একটা ক্যারেকটার। যার জীবনে কোন সুখ নাই, তার মুখেও কখনো হাসি থাকে না। যে নিজের স্বার্থের জন্য যে কোনো কিছু করতে পারে। তাকে যদি কোনো মিশন দিয়ে বলা হয়–‘তোমাকে একে মারতে হবে’, তখন সে আর দুনিয়ার কোনো কিছুর দিকে তাকায় না। যতক্ষণ না তার মিশন শেষ হচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত সে অন্য আর কিছুই করে না। খুব জেদী ও ভয়ংকর একটা চরিত্র।

এ চরিত্রে কাজ করতে আপনার কেমন লেগেছে?
চরিত্রটা খুব চ্যালেঞ্জিং ছিলো। পুরো ছবি জুড়েই আমি আছি। অনেক অভিনয়ের জায়গা ছিলো। তাছাড়া এ ধরণের চরিত্রে এই প্রথম কাজ করেছি। আমি কাজ করে খুব ইনজয় করেছি। চরিত্রটায় অভিনয় করে খুব ভালো লেগেছে।
‘শুটার’ ঈদে মুক্তি পাচ্ছে। এছাড়াও কী আপনার কোনো ছবি এর আগে ঈদে মুক্তি পেয়েছিলো?
ঈদে আমার ছবির মুক্তির তালিকায় ‘শুটার’ দ্বিতীয়। এর আগে ২০০৮ সালে বাবার (রাজ্জাক) পরিচালনায় ‘কোটি টাকার ফকির’ মুক্তি পেয়েছিলো।

দর্শকদের উদ্দেশে কিছু বলুন?
ইদানীং লক্ষ্য করা যায় অনেকে ফেসবুকেই শুধু আলোচনা সমালোচনা নিয়ে ব্যস্ত থাকেন। এদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই হলে এসে ছবি দেখেন না। আমার কথা হচ্ছে শুধু ফেসবুকে ব্যস্ত না থেকে আপনারা হলে এসে ছবি দেখুন। ছবি দেখে তারপর মন্তব্য করুন। এখন অনেক ভালো ভালো ছবি হচ্ছে। যেটার প্রমাণ আপনারা ‘শুটারে’র মধ্য দিয়েই পাবেন। দর্শকদের বলতে চাই আপনারা বেশি বেশি হলে আসুন। ছবি দেখে আমাদের উৎসাহ দিন।

Comments

comments

Leave a Reply

Scroll To Top