এবার দেশপ্রেমিকের চরিত্রে আসছেন দেব

সাংসদ থেকে অনেক বছর ধরে সিনেমার পর্দা কাঁপাচ্ছেন নায়ক দেব। কিছুদিন আগে সিনেমায় অভিনয়ের পাশাপাশি প্রযোজকের খাতায় নিজের নাম লিখিয়েছেন তিনি। একজন প্রযোজক হিসেবে নিজের দায়িত্বের জায়গা থেকে মনযোগী অন্যরকম কিছু উপহার দেয়ার জন্য। মানুষের কাছে যে উৎসাহব্যাঞ্জক হয় এইরকম চরিত্রগুলো প্রাধান্য দিতে চান আগামী দিনগুলোতে।

গত ঈদে তার মুক্তিপ্রাপ্ত ‘চ্যাম্প’ সিনেমার পর এখন কাজ করছেন সত্য ঘটনার উপর ভিত্তি করে নির্মিতব্য সিনেমা ‘ককপিট’এ। দর্শকদের জন্য অন্যরকম কিছুর অঙ্গীকার থেকেই এবার নিজস্ব ব্যানারে ‘বিনয়-বাদল-দীনেশ’ নামের ছবিটি নিয়ে প্রস্তুতি নিচ্ছেন দেব। ছবিটিতে তিনি ঐতিহাসিক দেশপ্রেমিক দীনেশের চরিত্রে অভিনয় করবেন।

এই ছবিটিরর গল্প নিয়ে তার কাছে এসেছিলেন অনিকেত চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু প্রধান বাধা ছিল বাজেট। তাই ফিরিয়ে দিয়েছিলেন। পরে মত বদলান তিনি। দেব আবার ডেকে পাঠিয়েছিলেন অনিকেতকে। অনেক আলোচনার পরে ঠিক করা হলো কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় পরিচালনা করবেন এই ছবি। অনিকেত থাকছেন চিত্রনাট্যকার হিসেবে।

চ্যাম্প’ ছবি দর্শকের কাছে পৌঁছতে না পৌঁছতেই হাত দিয়েছিলেন কমলেশ্বর মুখোপাধ্যায় পরিচালিত দেবকে নিয়ে ‘ককপিট’ ছবির কাজ। আর ককপিট শেষ হতে না হতেই ঘোষণা করে দিলেন ‘কবীর’ ছবির কথা। এবার অনিকেত চট্টোপাধ্যায়ের পরিচালনায়। এই চরিত্রে দেব একজন দেশপ্রেমিক।

দেবের মতে, কবীর এক দেশপ্রেমী সত্তার নাম। সত্যের সন্ধানে সে কখনও দাঁড়ায় জঙ্গিদের সামনে, কখনও বা এমন মানুষদের পাশে যারা দেশের জন্য জীবন দিয়েছেন। এভাবেই বদলাতে থাকে তার মতাদর্শ। তার দেশপ্রমের ধারণা।

আসলে দেব প্রস্তুতি নিচ্ছেন নিজের ভেতরের মানুষটাকে বদলানোর। নতুন উপলব্ধির দিকে এগিয়ে যাওয়ার। কারণ, সাহস করে তিনিই তো হাত বাড়াতে চাইছেন সেই উন্নতশির, নির্ভীক দীনেশের দিকে। তার আগে ‘কবীর’ চরিত্রটি হবে তার প্রস্তুতি পর্ব। নতুন ধামাকা নিয়ে দেব আবারও বাজিমাত করবেন এটাই প্রত্যাশা সবার।

Comments

comments

Scroll To Top