‘ওলট পালট’ সিনেমায় এবার যুক্ত হলেন সুপারস্টার প্রসেনজিৎ

ভারত আর বাংলাদেশের একঝাঁক শিল্পীকে এবার দেখা যাবে পরিচালক রবি কিনাগির নতুন ছবিতে। টলিউডের যিশু সেনগুপ্ত, সোহম, তনুশ্রীর সঙ্গে বাংলাদেশের মিম, পিয়া বিপাশা, আরফিন শুভ আর রোশনের সঙ্গে ইতিমধ্যে চুক্তি পাকা হয়ে গিয়েছে।

দুই বাংলার যৌথ প্রযোজনায় তৈরি এই ছবির বেশিরভাগ শ্যুটিং কলকাতায় হওয়ার পাশাপাশি ওপার বাংলাতেও বেশ কিছু দৃশ্য ক্যামেরাবন্দি করার কথা। আরও একটি চমক রয়েছে দর্শকদের জন্য। ছবির ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর হিসেবে রয়েছে টলিউডের সুপারস্টার প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের নাম।

দেবশ্রী রায়কে নায়িকা করে প্রসেনজিৎ আগে একটি ছবির পরিচালনা করেছিলেন। পুরুষোত্তম নামে সেই ছবির প্রযোজকও ছিলেন তিনিই। তারপর প্রযোজক হিসেবে টেলিভিশন আর সিনেমায় তাঁকে পাওয়া গেলেও পরিচালক হিসেবে পায়নি বাংলার দর্শক। বেশ কয়েকটি সাক্ষাৎকারে বারবার বলেছেন ভবিষ্যতে আবার সিনেমা পরিচালনা করতে চান তিনি। এবার সেই সাধ কিছুটা হলেও পূর্ণ হল।

প্রসেনজিৎ বললেন,‘আমার সবসময় মনে হয় দর্শক হলে যান ছবি দেখে আনন্দ পেতে। তাই যখন ছবি করব ভাবলাম তখন প্রথমেই রবিকে বলেছিলাম এমন একটা গল্প ভাবতে যেটা দিয়ে আদ্যপান্ত হাসির ছবি হবে। রবির সঙ্গে আমি বেশ কয়েকটা ছবি করেছি। দর্শকের পালস বোঝে ও।’ কাস্টিং নিয়েও নিশ্চয়ই আপনি মতামত দিয়েছেন? ‘অবশ্যই। গল্পটা ঠিক করে নেওয়ার পর প্রথমেই আমার যিশু আর সোহমের কথা মাথায় আসে। দুজনেই ভালো অভিনেতা, কমিক টাইমিংও অসাধারণ। আশা করছি দর্শকদের ভালো লাগবে ছবিটা’, বলছেন প্রসেনজিৎ।

কমেডিভিত্তিক এই ছবির নামকরণ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। রবি কিনাগি বললেন, ‘বুম্বাদার সঙ্গে ২-৩ মাস ধরে আলোচনা করার পর আমরা ঠিক করি এমন একটা ছবি তৈরি করব যেটা দেখতে বসে দর্শককে বেশি মাথা ঘামাতে হবে না। কমেডি ছবি। গলেপ্র সেই জোরটা আছে। দর্শক প্রাণখুলে উপভোগ করতে পারবেন। আমি বুম্বাদার সঙ্গে আগেও কাজ করেছি। কিন্তু এবার ব্যাপারটা অন্যরকম। বুম্বাদা এখানে ক্রিয়েটিভ ডিরেক্টর। ফলে খুব সামান্য ব্যাপারেও আমরা দু’জনে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নিচ্ছি’।

চিত্রনাট্য লিখেছেন নটরাজ দাস। সবকিছু ঠিকঠাক চললে জুন মাসের শুরুতেই ছবিটি ফ্লোরে যাচ্ছে। এদেশের প্রযোজক হিসেবে রয়েছেন শ্যামসুন্দর দে।

Comments

comments

Scroll To Top