যতদিন শাকিবের ছবি থাকবে ততদিন ইন্ডাস্ট্রি বাঁচবেঃ কাজী মারুফ

যতদিন শাকিবের ছবি থাকবে ততদিন ইন্ডাস্ট্রি বাঁচবে। বর্তমান বাজারে ছবি চালাতে হলে তারকা লাগবে এবং বিক্রয়যোগ্য তারকা বলতে একমাত্র শাকিবকেই বুঝায়। সম্প্রতিক সময়ের প্রেক্ষিতে এমনটাই মত দিলেন অভিনেতা কাজী মারুফ।

সম্প্রতি মোস্তাফিজুর রহমান বাবু পরিচালিত ‘বিদ্ধস্থ’ সিনেমার শুটিঙের অবসরে একটি অনলাইন পত্রিকার সাথে আলাপকালে নিজের মত প্রকাশ করেন এই তারকা। তিনি বলেন, আমরা যখন একটি ছবি নির্মান করি তখন মনে হয় আমরা আমাদের শ্রেষ্ট কাজ করছি। কিন্তু সে ছবি পর্দায় দেখা যায় দর্শক প্রত্যাখ্যান করছে।  এফডিসিতে বসে ছবি নির্মান এবং তার মার্কেটিং এক নয়। শাকিব খান ছাড়া আর কারও ছবিতে প্রদর্শকরা অর্থ লগ্নি করতে চাননা। তিনি আরো বলেন, আমি গত বছর পর্যন্ত ছবি রিলিজ করেছি। দেখলাম কোন লাভ নেই। এখন ছবি প্রযোজনাও বন্ধ করে দিয়েছি।

লাভ হয় না বা দর্শক দেখেনা বলে তিনি ছবি প্রযোজনা বন্ধ করে দিয়েছেন। কিন্তু তিনি যে ছবিতে অভিনয় করছেন সেটি বাজার কাটতি হবে তার নিশ্চয়তা কি? তাহলে তিনি জেনেশুনে অন্য একজন প্রযোজকের ক্ষতি করছেন কেনো? এই প্রশ্নের জবাবে কাজী মারুফ বলেন, আমিও এখন তেমন কোনো ছবিতে কাজ করছি না। যে ছবিতে কাজ করছি সেটি পুরনো। অভিনয় ঠিকই করছি কিন্তু প্রযোজককে লাভ করিয়ে দেওয়ার মতো তারকা হতে পারিনি। শাকিব খান সত্যিকারের অর্থেই তারকা। প্রদর্শকরা তার ছবিতে টাকা লগ্নি করেন। এজন্য প্রযোজকরা শাকিবের দেয়া কষ্ট সয্য করেও তাকে নিয়ে ছবি বানান।

কিন্তু প্রযোজকরা সত্যিকার অর্থেই শাকিবকে নিয়ে লাভবান হন? লাভ-লোকশানের চাইতেও বড় কথা হলো প্রযোজকরা হল মালিকদের সাড়া পান। কাজী মারুফ বলেন, “টাকা আসবে কোথা থেকে? একে এক সব সিনেমাহল বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। এইতো ক’দিন আগে পূর্নিমা সিনেমা হল বন্ধ হয়ে গেলো। এখান থেকে আমরা তিন লাখ টাকা পেতাম। সে পথ বন্ধ হয়ে গেল। এভাবে অর্থ প্রাপ্তির জায়গাগুলো ক্রমশ সংকুচিত হয়ে আসছে। ছবি বানিয়ে তাহলে কি হবে।”

Comments

comments

Scroll To Top