পুনর্জন্ম নিয়ে নির্মিত বলিউডের আলোচিত কয়েকটি ছবির কথা

বলিউডের সিনেমায় “পুনর্জন্ম” বেশ জনপ্রিয় একটি বিষয়বস্তু হিসেবে বিবেচিত হয়ে আসছে। সম্প্রতি মুক্তি পেয়েছে পুনর্জন্ম ভিত্তিক সিনেমা ‘রাবাতা’। সুশান্ত সিং রাজপুত এবং কৃতি শ্যনন অভিনীত সিনেমাটি বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়লেও বলিউডের ইতিহাসে অন্যতম সফল কয়েকটি সিনেমার বিষয়বস্তু ছিলো পুনর্জন্ম।

আজকের লেখায় পুনর্জন্ম নির্মিত বলিউডের কিছু আলোচিত সিনেমা নিয়ে কথা বলব। এখানে উল্লেখিত সবগুলো সিনেমার বক্স অফিসে সফল না হলেও মুক্তির আগে পরে বিভিন্ন কারনে আলোচনায় ছিলো। দেখে নেয়া যাক পুনর্জন্ম নিয়ে নির্মিত বলিউডের আলোচিত কয়েকটি সিনেমার বিস্তারিত।

১। মহল

পুনর্জন্ম নিয়ে নির্মিত ভারতের প্রথম ছবি ‘মহল’ মুক্তি পায় ১৯৪৯ সালে। কামাল আম্রোহির পরিচালনায় এই ছবিতে অভিনয় করেছিলেন অশোক কুমার এবং মধুবালা। ছবির গল্পে দেখা যায় দুইজন প্রেমিক প্রেমিকা তাদের প্রথম জন্মে অস্বাভাবিক মৃত্যুর স্বাদ বরন করেন। বেশ কয়েক বছর পর একজন খুব সুন্দর এবং পরিত্যাক্ত জায়গায় থাকতে আসে। আর সেখানে এসে তার দেখা হয় একজন ভূতের সাথে যার প্রেমিক হুবহু দেখতে ওই লোকের মত। লতা মুঙ্গেশকারের কণ্ঠে বিখ্যাত হিন্দি রোম্যান্টিক গান “আয়গা আনেওয়ালা” এই সিনেমারই অংশ।

২। মধুমতি

পুনর্জন্ম নিয়ে নির্মিত বলিউডের অন্যতম সেরা ছবি ‘মধুমতি’ যা ফিল্মফেয়ার এওয়ার্ডে মোট নয়টি পুরষ্কার জয়লাভ করেছিলো। ১৯৫৮ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত বিমল রয়ের পরিচালনায় এই ছবিতে প্রধান চরিত্রে ছিলেন দীলিপ কুমার এবং বিজয়ান্তিমালা। এক ঝড়ের রাতে দেবেন্দ একটি পুরাতন ম্যানসনে আশ্রয় নেয়ার পরেই অস্বাভাবিক কিছুর মুখোমুখি হয়। তার আগের জন্মের বেশ কিছু সৃতি তার চোখের সামনে ভাসতে থাকে। ছবিতে দুইটি বিখ্যাত গানের মধ্যে একটি হলো লতা মুঙ্গেশকারের কণ্ঠে “আজা রে পারদেশী” এবং অন্যটি মুখেশের কণ্ঠে “সোহানা সাফার অর ইয়ে মৌসম”।

৩। মিলান

এই সিনেমার কথা বলতে গেলে সবার আগেই বলতে হয় সিনেমার গান “সওয়ান কা মাহিনা” এর কথা। সুনীল দত্ত এবং নূতন অভিনীত এই সিনেমাটি পরিচালনা করেছিলেন অদূর্তি সাবা রয়। এটি আসলে ছিলো তেলেগু সিনেমা ‘মোগা মানাসুলু’ এর হিন্দি রিমেক। নব্য বিবাহিত জুটি রাধা দেবী এবং গোপিনাত তাদের মধু চন্দ্রিমাতে যাওয়ার সময় একটি নদী পাড়ি দেতে গেলেই শুরু হয় বিপত্তি। নদীটি পাড়ি দেয়ার সময় গোপিনাথের চোখের সামনে তার আগের জন্মের ঘটনাগুলো ভাসতে থাকে। সে দখতে পায় তার আগের জন্মে এই নদীতে তার মৃত্যু হয়েছিলো। নিজের এবং রাধার আগের জন্মের গল্প বলা নিয়েই এগিয়ে যায় সিনেমার কাহিনী।

৪। মেহবুবা

১৯৭৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই সিনেমাটি পরিচালনা করেন শক্তি শামান্তা এবং প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন রাজেশ খান্না এবং হেমা মালিনী। ছবিতে গায়ক সূরজের দেখা হয় তার আগের জন্মের প্রেমিকা রত্না এর সাথে। আগের জন্মে সে ছিলো একটি গানের দলের প্রধান গায়ক এবং তার প্রেমিকা ছিলো একজন নর্তকি। এই জন্মে কি তারা আবারও এক হতে পারবে? এই প্রশ্নের উত্তরের খোঁজে এগিয়ে যায় সিনেমার গল্প।

৫। কার্য

১৯৮০ সালে মুক্তি পায় সুভাষ ঘাই পরিচালিত পুনর্জন্ম ভিত্তিক গল্পের অন্যতম আলোচিত সিনেমা ‘কার্য’। ঋষি কাপুর, টিনা মুনিম এবং সিমি আগারওয়াল অভিনীত এই সিনেমাটিকে বলিউডের ইতিহাসের কালজয়ী সিনেমা হিসেবে বিবেচনা হরা হয়ে থাকে। গল্পে দেখা যায় বিয়ের কিছু দিনের মাথায় নিজের স্থ্রী কামিনীর হাতে খুন হন রবি ভার্মা। দুই দশক পর রবি মন্টি রুপে পুনর্জন্ম লাভ করেএবং রবির মৃত্যুর প্রতিশোধের পরিকল্পনা করে। বক্স অফিসে বিশাল সাফল্যের পাশাপাশি সিনেমাটি এখনও স্মরণীয় হয়ে আছে এর কালজয়ী গানের কারনে।

৬। কুদরত

‘মেহবুবা’ এর পর রাজেশ খান্ন এবং হেমা মালিনী অভিনীত দ্বিতীয় সিনেমা ‘কুদরত’। চেতন আনন্দ পরিচালিত সিনেমাটি মুক্তি পায় ১৯৮১ সালে। জমিদারের ছেলে জানাক পারোকে ধর্ষনের পর হত্যা করে। এই খবর শুনে পারোর প্রেমিক মাধাব আত্নহত্যা করে। পরবর্তিতে এই প্রেমিক যুগল একই জায়গায় দ্বিতীয়বারের মত জন্মগ্রহণ করে এবং আগের জন্মের অন্যায়ের প্রতিশোধ নেয়।

৭। করন অর্জুন

বলিউডের ইতিহাসের অন্যতম সফল এবং আলোচিত সিনেমা ‘করন অর্জুন’। ১৯৯৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত শাহরুখ খান এবং সালমান খান অভিনীত সিনেমাটি পরিচালনা করেন রাকেশ রোশন। জায়গা দখলের জন্য সিনেমার ভিলেন ঠাকুর (অমরেশ পুরী) করন এবং অর্জুনকে খুন করে। ক্রন-অর্জুনের বিধবা মা তার দুই সন্তানদের ফিরে পেতে ভগবানের কাছে প্রার্থনা শুরু করেন। একসময় তার প্রার্থনা কবুল হয় এবং পরের জন্মে ক্রন-অর্জুন ফিরে এসে তাদের হত্যার প্রতিশোধ নিতে সক্ষম হয়।

৮। ওম শান্তি ওম

২০০৭ সালের সবচেয়ে ব্যবসা সফল সিনেমা ‘ওম শান্তি ওম’। পুনর্জন্ম ভিত্তিক গল্পের এই সিনেমাতে শাহরুখ খানের বিপরীতে অভিষিক্ত হন দীপিকা পাডুকন। মুক্তির পর বক্স অফিসে ঝড় তুলে ফারাহ খান পরিচালিত এই সিনেমা। সিনেমার গল্পে দেখা যায় শান্তি প্রিয়া নামের এক নায়িকা খুন হন তার প্রযোজন স্বামীর হাতে এবং পুরো ঘটনা দেখে ফেলে একজন জুনিয়র আর্টিস্ট ওম। সেই ঘটনায় সেও মৃত্যু বরণ করে। পরবর্তিতে ওম তার পরের জন্মে সিনেমার সুপারস্টার হিসেবে জন্মগ্রহণ করে এবং শান্তির মৃত্যু প্রতিশোধ নেয়।

৯। লাভ স্টোরি ২০৫০

পুনর্জন্ম ভিত্তিক সাইন্স ফিকশন সিনেমা ‘লাচ স্টোরি ২০৫০’ মুক্তি পায় ২০০৮ সালে। হ্যারি বেওয়াজা পরিচালিত এই সিনেমার প্রধান দুটি চরিত্রে অভিনয় করেন হারমান বেওয়াজা এবং প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। সড়ক দূর্ঘটনায় মৃত্যুবরণ করে করনের প্রেমিকা সানা। করন জানতে পারে সানা ২০৫০ সালে যিশা রুপে নতুন করে জন্ম নিবে ২০৫০ সালে। তার ২০৫০ সালের যিশাকে বর্তমানে নিয়ে আসতে করন টাইম ট্র্যাভেল করে ২০৫০ সালের মুম্বাইয়ে যায়। মুক্তির আগে আলোচনায় থাকলেও মুক্তির পর বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পরে সিনেমাটি।

১০। ডেঞ্জারাস ইশক ৩ডি

বিক্রম ভাট পরিচালিত এই ছবি দিয়ে বলিউডে কামব্যাক করেন কারিশমা কাপুর। দীর্ঘ ৬ বছরের বিরতির পর ২০১২ সালে ‘ডেঞ্জারাস ইশক’ এর মাধ্যমে পর্দায় ফিরেন নব্বই দশকের এই জনপ্রিয় নায়িকা। ছবিটিতে কারিশমার পাশাপাশি আরো অভিনয় করেন রাজনেশ দুজ্ঞাল। বিগত চার জন্ম ধরে ব্যবসায়ীর পুত্র রোহান এবং সুপার মডেল সাঞ্জানা ভালোভাসে দুজন দুজনকে। কিন্তু প্রতিবারই তাদের ভালোবাসায় বাধা হয়ে দাঁড়ায় দুর্গম সাহা। এই জন্মে কি তারা মিলিত হতে পারবে? বক্স অফিসে মুখ থুবড়ে পড়ার পাশাপাশি সমালোচকদের কাছ থেকে খারাপ রিভিউ পায় সিনেমাটি।

১১। এক পাহেলি লীলা

২০১৫ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ববি খান পরিচালিত এই সিনেমার প্রধান কয়েকটি চরিত্রে অভিনয় করেন সানি লিওন, রাজনেশ দুজ্ঞাল, জয় বানুশালি এবং মোহিত আলাওয়াত। সঙ্গীত শিল্পী কারানের সাথে এন আর আই সুপারমডেল মীরা এবং রাজপুতের যুবরাজ রনবীর সিং এর আজের জন্মের কাহিনীর উপর ভিত্তি করে তৈরি সিনেমাটি। মুক্তির পর বক্স অফিসে মোটামোটি ব্যবসা করতে সক্ষ্ম হয় সানি লিওনের আলোচিত এই সিনেমা।

Comments

comments

Scroll To Top